================================ START BREADCRUMB AREA ================================= -->
...
আমার মুজিব

হাজার বছর ধরে অসংখ্য বিদ্বান, মনীষী বাংলার শিক্ষা, অর্থনীতি, শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতি ও রাজনীতির প্রসার ঘটিয়েছেন। তাঁদের অবদান কখনই ভোলার নয়। সেইসব বিদ্বান ও মনীষীদের অবদানকে বুকে ধারণ করে তিলে তিলে একটা অসামান্য স্বপ্নের বীজ বাঙালির মনে গেঁথে দিয়েছেন খুবই সাফল্যের সঙ্গে কেবল একজনই। সেই স্বপ্নটি হলো, বাঙালির আলাদা একটি রাষ্ট্র হবে। সেই রাষ্ট্রের নায়ক হবেন একজন বাঙালি। এই রাষ্ট্রের ভাষা হবে বাংলা। সেই স্বপ্নের ফেরিওয়ালার নাম শেখ মুজিবুর রহমান। বাঙালি পরম মমতায় তাঁকে ডাকেন বঙ্গবন্ধু বলে। তিনি বাঙ্গালী জাতির পিতা। তিনি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী। 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুধু একটি নাম নয়। বঙ্গবন্ধু একটি প্রতিষ্ঠান, একটি সত্তা, একটি ইতিহাস, একটা অনুভূতি। বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ। ‘যত দিন বাংলাদেশ থাকবে, বাঙালি থাকবে, এ দেশের জনগণ থাকবে, তত দিনই বঙ্গবন্ধু সবার অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবেন। বঙ্গবন্ধুর সারাজীবন যেন শুধুই বাংলাদেশের জন্য।  শৈশব থেকে শুরু করে ভাষা আন্দোলন, ছয় দফা আন্দোলন, উনসত্তরের গণ-অভ্যুত্থান, সত্তরের নির্বাচন, একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীন বাংলাদেশ গড়ে তোলা সবখানেই বঙ্গবন্ধুর দীপ্ত পদচারণা। বঙ্গবন্ধু আর বাংলাদেশ যেন একাকার। 

এ বছর আমরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ‌ও মুজিববর্ষ উদযাপন করছি। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন, দর্শন, আদর্শ, ত্যাগ আর সংগ্রামের কথা আগামী প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেয়ার এটাই মোক্ষম সময়। অনেক সময় আমরা অনুপ্রেরণা নেয়ার জন্য বিদেশি গুণীজনের সন্ধান করি; কিন্তু বঙ্গবন্ধুর চেয়ে বড় অনুপ্রেরণা আর কী হতে পারে? আগামী প্রজন্ম যেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ, জীবন দর্শন সম্পর্কে জানতে পারে, সেইভাবে নিজেদের জীবন গড়তে পারে সে লক্ষ্যে দুর্বার-এর পক্ষ থেকে আয়োজন করা হয়েছে “আমার মুজিব-শতবর্ষের শত প্রশ্ন” নামের বিশেষ ক্যাম্পেইন। 

মুজিববর্ষে বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য জীবন নিয়ে আমরা সাজিয়েছি একশো প্রশ্ন। এই একশো প্রশ্ন থেকে প্রতি সপ্তাহে কুইজ আকারে ২০ টি করে প্রশ্ন দেয়া হবে। যারা কম সময়ে বেশি সংখ্যক প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিতে পারবেন এমন তিনজনকে সেই সপ্তাহের বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করা হবে। এভাবে মোট ৫ সপ্তাহ ধরে চলবে কুইজ প্রতিযোগিতাটি।

প্রতিযোগিতা

...

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ Online


মুজিবের কাছে চিঠি

মুজিবের কাছে চিঠি প্রতিযোগিতা: বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানেই বাংলাদেশ, আর সমগ্র  বাংলাদেশের হৃদয়জুড়ে রয়েছেন তিনি। হিমালয়সম এই মানুষটি সম্পর্কে আমাদের জানার পরিধি হয়তো খুব সামান্য, কিন্তু এই সামান্য জ্ঞান দিয়েই আমরা আমাদের সন্তানদের সামনে বঙ্গবন্ধুকে তুলে ধরি।একটা বিষয় কি আপনি কখনও লক্ষ্য করেছেন? আপনি যখন আপনার শিশু সন্তানদের সামনে বঙ্গবন্ধুর গল্প বলেন তখন দেখবেন  তাদের চোখ-মুখ উজ্জ্বল হয়ে উঠেছে। বঙ্গবন্ধু তাদের কাছে সুপার হিরো। তারা বঙ্গবন্ধুকে আরও জানতে চায়। অনেক শিশুর মধ্যে আমরা একটা সুপ্ত ইচ্ছে লক্ষ্য করেছি। তারা তাদের প্রিয় সুপার হিরো মুজিবকে শ্রদ্ধা ও ভালবাসা জানাতে চায়, একটা  কিছু বলতে চায়।আপনার সন্তান ও আপনার আশেপাশের শিশুদের সেই সুপ্ত ইচ্ছে পূরণের জন্য আমাদের বিশেষ আয়োজন “মুজিবের কাছে চিঠি”। মুজিববর্ষ উপলক্ষে আয়োজিত এই ক্যাম্পেইনে প্রথম শ্রেণী থেকে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা অংশ নিতে পারবে। চিঠি লিখতে হবে কাগজ-কলমে। আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবারের মধ্যে আপনার সন্তানের হাতে লেখা চিঠি ছবি তুলে নিয়ম অনুযায়ী আমাদের কাছে পাঠিয়ে দিন। আপনার উৎসাহ এবং সহযোগিতা পেলেই আপনার সন্তান এই ক্যাম্পেইনে অংশ নিতে পারবে।যে নিয়মে মুজিবের কাছে চিঠি লিখতে হবে:তোমরা যারা প্রথম শ্রেণী থেকে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী তাদের জন্য দারুণ খবর। তোমার জন্য দুর্বার প্লাটফর্ম আয়োজন করেছে “মুজিবের কাছে চিঠি” নামের বিশেষ প্রতিযোগিতা।তুমি যদি প্রাইমারি-হাইস্কুল অথবা মাদ্রাসার প্রথম শ্রেণী থেকে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী হয়ে থাকো তবে তুমি “মুজিবের কাছে চিঠি লেখা” প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারো;বাছাই করা সেরা ১০টি চিঠির লেখকদের জন্য থাকবে দারুণ পুরস্কার; চিঠি লিখতে হবে কাগজ-কলমে এবং, অবশ্যই এক পৃষ্ঠার মধ্যে। টাইপ করা বা কম্পোজ করা চিঠি আমরা নেবোনা কারণ তোমার চিঠিটা আমাদের কাছে খুব গুরুত্বপূর্ণ, এখানে তোমার হাতের ছোঁয়া আছে। চিঠিটা আমরা সংরক্ষণ করতে চাই; তুমি একটির বেশি চিঠি পাঠাতে পারবেনা। তাই তোমার পাঠানো সেই একটি চিঠি যেন দারুণ হয় সেটি মনে রাখতে হবে। তোমার বন্ধু, সহপাঠী, খেলার সাথী, তোমার বয়সী তোমার পরিচিতদের এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে বলো;নিজের মাথা খাটিয়ে তোমাকে চিঠি লিখতে হবে। বাবা, মা, শিক্ষক বা পরিচিত কারো সাথে আলাপ করতে পারো কিন্তু চিঠি তোমাকে তোমার ভাষায় লিখতে হবে। ইন্টারনেট থেকে বা কারো থেকে কপি করাও যাবেনা। মনে রাখবে,  “মুজিবের কাছে চিঠি” প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে তুমি তোমার  প্রতিভা সবার সামনে তুলে ধরার দারুণ সুযোগ পাচ্ছো;চিঠির শুরুতে প্রিয় বঙ্গবন্ধু এবং চিঠির শেষে তোমার নাম, বয়স, জেলা, স্কুলের নাম, তুমি কোন শ্রেণীর শিক্ষার্থী বিষয়টি উল্লেখ করতে হবে;বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে জন্ম শতবর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে তোমাকে চিঠিটি লিখতে হবে। শুভেচ্ছা জানানো ছাড়াও তুমি চিঠির মধ্যে যেসব বিষয় লেখা যেতে পারোঃ ক) বাংলাদেশের জন্য বঙ্গবন্ধুর অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ভালবাসা জানাতে পারো খ) বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে তুমি কী কী জানো গ) বঙ্গবন্ধুকে তুমি কেন এতো পছন্দ করো ঘ) বড় হয়ে দেশের জন্য তুমি কী করতে চাও সেটাও লিখতে পারো; বাংলা বা ইংরেজি যেকোনো ভাষায় চিঠি লিখতে পারো। হাতের লেখা সুন্দর হলে খুব ভাল, তবে লেখা যেন অবশ্যই স্পষ্ট হয়। স্পষ্ট না হলে কেউ তোমার চিঠি পড়তে পারবেনা।আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে চিঠি লিখে তুমি তোমার বাবা-মা, ভাই-বোন, শিক্ষক বা এমন কারো কাছে দিবে যিনি ফেসবুক ব্যবহার করতে পারেন। এখানেই তোমার কাজ শেষ। অভিভাবকদের জন্য করণীয়: আপনারা নিশ্চয় জানেন, প্রথম শ্রেণী থেকে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের জন্য  দুর্বার প্লাটফর্ম আয়োজন করেছে “মুজিবের কাছে চিঠি” নামের বিশেষ প্রতিযোগিতা। আপনার সন্তান, ছোট ভাই-বোন, ছাত্র-ছাত্রী বা পরিচিত কেউ যদি “মুজিবের কাছে চিঠি” প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে চায়, তবে তাকে অবশ্যই উৎসাহ দিন। সেই সাথে দয়া করে তার লেখা চিঠি আমাদের কাছে পাঠানোর জন্য সহযোগিতা করুন।এজন্য আপনাকে যা করতে হবেঃ১। সবার প্রথমে মোবাইল ফোন দিয়ে চিঠির একটি ছবি তুলতে হবে। লক্ষ্য রাখবেন ছবি যেন পরিষ্কার এবং ঝকঝকে হয়। ছবি ঝাপসা হলে চিঠির লেখা পড়া যাবেনা;২। এবার সেই ছবি আপনি আপনার ফেসবুক প্রোফাইল থেকে আপলোড করবেন।৩। ছবি আপলোড করার সময় ক্যাপশনে (স্ট্যাটাস) চিঠি লেখকের নাম, বয়স, জেলা, স্কুলের নাম, কোন শ্রেণীর শিক্ষার্থী বিষয়টি উল্লেখ করতে হবে।৪। আপনার ফেইসবুক প্রোফাইল যদি লকড থাকে, তাহলে আপনার শেয়ার করা "মুজিবের কাছে চিঠি" আমাদের কাছে পৌঁছাবে না। তাই ছবির লিংক শেয়ার করার আগে আপনার প্রোফাইলটি আনলক করুন।৫। আপনার লেখা মুজিবের কাছে চিঠির ছবিতে দুর্বারের ফেসবুক পেইজ কে ট্যাগ করুন এবং পোস্টটি পাবলিক করে দিন৬। ক্যাপশনে চিঠি লেখক শিক্ষার্থীর নাম, শ্রেণী, বিদ্যালয়, ইত্যাদি তথ্যের পাশাপাশি অবশ্যই এই তিনটি  (#Durbar21, #AmarMujib, #LetterToMujib এগুলো কপি করে পেস্ট করতে পারেন)  হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করতে হবে। সঠিকভাবে হ্যাশট্যাগ লিখতে না পারলে আপনার আপলোড করা চিঠি প্রতিযোগিতা থেকে বাদ পড়বে।৭। চিঠির ছবিসহ পোস্ট আপলোড করার পর দেখবেন এই পোস্টের একটি লিংক তৈরি হয়েছে। এবার এই লিংক কপি করে আমাদের কাছে পাঠাতে হবে। এজন্য আপনাকে  এই লিংকে (https://forms.gle/hNDUB9rVypxd83NEA) যেতে হবে। চিঠির ছবির পোস্টের লিংক এবং প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে ফর্ম পূরণ করলেই আপনার কাজ আপাতত শেষ।মনে রাখবেন, আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি, বৃহস্পতিবার রাত ১২ টার মধ্যেই আপনাকে ফর্ম পূরণ করে পাঠাতে হবে;

...

১৭ মার্চ, ২০২১ Online


“আমাদের মুজিব” বিশেষ রচনা প্রতিযোগিতা

“আমাদের মুজিব” বিশেষ রচনা প্রতিযোগিতা:মুজিববর্ষ উপলক্ষে শুরু হয়েছে “আমাদের মুজিব” নামের বিশেষ রচনা প্রতিযোগিতা।* রচনার বিষয়ঃ “আমি ও আমার মুজিব” * যাদের জন্যঃ ক) উচ্চ মাধ্যমিক খ) স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থী * রচনা পাঠানোর সময়সীমাঃ ৩১ মার্চ ২০২১*পুরস্কারঃ প্রথম পুরস্কার ২০০০০ টাকা এবং সেরা ১০০ জনের জন্য ১০০টি আকর্ষণীয় পুরস্কার* এছাড়া নির্বাচিত ১০০ রচনা নিয়ে আমরা প্রকাশ করবো “আমাদের মুজিব” নামের একটি বিশেষ বই।প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের নিয়মাবলী এবং বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন এই লিঙ্কেঃ https://forms.gle/TonWCpNa3FEPygmz5রচনা লেখার আগে যে সকল নিয়মাবলী গুলো লক্ষ্য রাখতে হবে:১। কেবল উচ্চ মাধ্যমিক (প্রথম বর্ষ ও দ্বিতীয় বর্ষ) এবং স্নাতক (প্রথম বর্ষ থেকে শেষ বর্ষ পর্যন্ত) পর্যায়ের শিক্ষার্থীরাই এ প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবে। একজন একটির বেশি রচনা জমা দিতে পারবেনা; ২। রচনা অবশ্যই ৫০০ শব্দের মধ্যে বাংলা/ ইংরেজিতে লিখতে হবে। ৩। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে তোমার একান্ত ব্যক্তিগত ভাবনা, অনুভূতি, তোমার দৃষ্টিতে তিনি আজও কেন এতো গুরুত্বপূর্ণ, তাঁর কোন কোন গুণ তোমাকে মুগ্ধ করে এবং তোমার জীবনে তাঁর কোনো প্রভাব আছে কিনা ইত্যাদি বিষয় নিয়ে রচনা লিখতে হবে; ৪। কোন বই, সংবাদপত্র, ম্যাগাজিন অথবা অনলাইন মাধ্যম থেকে লেখা কপি করা যাবে না। লেখার সময় কারো সাহায্য নেয়া যাবে না। নিজের অনুভূতি নিজের মত করে লিখতে হবে; ৫। গুগল ফর্মের প্রথম অংশে প্রয়োজনীয় তথ্য যেমন নাম, মোবাইল নং, ই-মেইল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম-ঠিকানা, শিক্ষাগত যোগ্যতা (প্রয়োজনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রমাণপত্র চাওয়া হতে পারে) শিক্ষাবর্ষ দিতে হবে এবং দ্বিতীয় অংশে রচনা লিখে জমা (সাবমিট) দিতে হবে; ৬। রচনা অবশ্যই আগামী বুধবার ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখ রাত ১১ টা ৫৯ মিনিটের মধ্যে জমা দিতে হবে। ৭। প্রতিযোগিতার যেকোনো বিষয়ে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে; ৮। দুই ক্যাটাগরিতেই ( উচ্চ মাধ্যমিক এবং স্নাতক) প্রথম পুরস্কার ২০০০০ টাকা এবং সেরা ১০০ জনের জন্য থাকবে আকর্ষণীয় পুরস্কার; ৯। তোমাদের পাঠানো রচনা থেকে সেরা ১০০ রচনা (লেখকের নাম-পরিচয়সহ) নিয়ে প্রয়োজনীয় সম্পাদনার পর দুর্বার কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে “আমাদের মুজিব” নামে একটি বই প্রকাশ করা হবে। এ বিষয়ে রচনা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের সম্মতি থাকা লাগবে।জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে তোমার একান্ত ব্যক্তিগত ভাবনা, অনুভূতি, তোমার দৃষ্টিতে তিনি আজও কেন এতো গুরুত্বপূর্ণ, তাঁর কোন কোন গুণ তোমাকে মুগ্ধ করে এবং তোমার জীবনে তাঁর কোনো প্রভাব আছে কিনা ইত্যাদি বিষয় নিয়ে রচনা লিখতে হবে। রচনা অবশ্যই ৫০০ শব্দের মধ্যে হতে হবে, অন্যথায় এটি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য উপযুক্ত হবেনা।রচনা লেখা শেষ হলে এই গুগল ফর্ম লিংকে https://forms.gle/TonWCpNa3FEPygmz5 তোমাকে রচনা লিখে জমা দিতে হবে। তুমি চাইলে এখানে টাইপ করতে পারো অথবা অন্য কোথাও লিখে সেটি কপি করে এখানে পেস্ট করতে পারো।